ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক নিয়ে পারিবারিক দ্বন্দ্ব চরমে

0
2676

সিনিয়র রিপোর্টার : ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক (ইউসিবিএল) নিয়ে দুটি পরিবারের বিবাদ আরো বাড়ছে। আক্তারুজ্জামান চৌধুরী বাবু ও এমএ হাসেম পরিবারের মধ্যে এই দ্বদ্ব এখন চরমে। হাসেম পরিবারের অভিযোগ, সরকারি প্রভাব খাটিয়ে প্রয়াত আক্তারুজ্জামান বাবুর ছেলেরা ব্যাংকটিতে স্বেচ্ছাচারিতা চালাচ্ছেন। আর অপরপক্ষ বলছে, হাসেম লুটপাটের সুযোগ না পেয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছেন।

সম্প্রতি ইউসিবিএল ব্যাংকের নানা অনিয়ম তুলে ধরে বাংলাদেশ ব্যাংকে চিঠি দিয়েছেন ব্যাংকটির সাবেক চেয়ারম্যান আবুল হাসেম। চিঠিতে তিনি জানিয়েছেন, ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ বাংলাদেশ সরকারের একজন প্রতিমন্ত্রী হয়ে সরকারি কার্যাবলি উপেক্ষা করে বোর্ডের প্রতিটি মিটিংয়ে চেয়ারম্যান হিসেবে সভা পরিচালনা করছেন।

তিনি প্রতিদিন তার মন্ত্রণালয় ছেড়ে বিকাল ৩ থেকে ৪টার দিকে আবার কোনো কোনো দিন তার আগেও ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে এসে চেয়ারম্যানের আসনে বসে ব্যাংক পরিচালনা করছেন। ফলে দৈনন্দিন ব্যাংকিং কার্যক্রমে অনাকাক্সিক্ষত প্রভাব প্রতিফলিত হচ্ছে এবং ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ভয়ভীতিতে অস্থির হয়ে পড়ছেন।

পারটেক্স গ্রুপ চেয়ারম্যান হাসেমের অভিযোগ, সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ একতরফাভাবে তার স্ত্রীকে ইউসিবিএলের চেয়ারম্যান ও তার ভাই আনিসুজ্জামান চৌধুরী রনিকে নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান ঘোষণা করেছেন। তার স্ত্রীকে চেয়ারম্যান মনোনীত করার পর থেকে সবকটি বোর্ড মিটিংয়ে চেয়ারম্যানের জন্য নির্দিষ্ট আসনে অধিষ্ঠিত হয়ে মিটিং পরিচালনা করে আসছেন সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ।

অন্যদিকে তার স্ত্রী (ব্যাংকটির চেয়ারম্যান) রুকমিলা জামান চৌধুরী বেশ কিছুদিন ধরে সপরিবারে লন্ডনে অবস্থান করছেন। তার স্ত্রীর অনুপস্থিতিতে স্বাক্ষর জাল করে বোর্ড মিটিংয়ের স্বাক্ষর বইতে মিটিং পরিচালনা ও মিটিংয়ের ফি উত্তোলন করেন সাইফুজ্জামান চৌধুরী।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ বলেন, এমএ হাসেম এতদিন ব্যাংকটি লুটেপুটে খেয়েছেন। এখন আর খেতে পারছেন না বলে আমার বিরুদ্ধে এসব বলছেন।

তিনি আরও বলেন, আমার স্ত্রী ইউসিবিএলের চেয়ারম্যান। আমার ভাই আনিসুজ্জামান চৌধুরী রনি এ ব্যাংকের নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান। আমার বাবা মরহুম আকতারুজ্জামান বাবু এ ব্যাংকের চেয়ারম্যান ছিলেন। এছাড়া মন্ত্রী হওয়ার আগে আমিও ব্যাংকটির চেয়ারম্যান ছিলাম। তাই এ ব্যাংকে তো আমি যাবই।

বাংলাদেশ ব্যাংকে পাঠানো চিঠিতে ইউসিবিএলের পরিচালক এমএ হাসেম ব্যাংকটিতে অবজারভার নিয়োগ প্রদানের দাবি জানিয়েছেন। এছাড়া সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ যাতে ইউসিবিএলের বোর্ড সভায় উপস্থিত না হন, সে বিষয়ে অনুরোধ জানিয়েছেন।

চিঠিতে এমএ হাসেম অভিযোগ করেন, গত ২০ সেপ্টেম্বরের বোর্ড সভাটিও সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ অবৈধভাবে পরিচালনা করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে বোর্ড মিটিংয়ে তার উপস্থিতির প্রতিবাদে বাগ্বিতণ্ডার একপর্যায়ে উপস্থিতির স্বাক্ষর বইতে স্বাক্ষর না করে তিনি (এমএ হাসেম) ওয়াক আউট করেন।

এ বিষয়ে জানতে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র শুভঙ্কর সাহার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

প্রসঙ্গত, ২০১৩ সালে ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন বিশিষ্ট শিল্পপতি পারটেক্স গ্রুপের চেয়ারম্যান এমএ হাসেম। একই পরিবার থেকে বিভিন্ন সময়ে পরিচালক হিসেবে ব্যাংকটিতে জড়িত ছিলেন আজিজ আল কায়সার, আজিজ আল মাহমুদ, আজিজ আল মাসুদ, শওকত আজিজ রাসেল ও রুবেল আজিজ।

অন্যদিকে ভ‚মি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাভেদের বাবা মরহুম আক্তারুজ্জামান বাবু ব্যাংকটির পরিচালনা পর্ষদ ও নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন। তার মৃত্যুর পরে ব্যাংকটির পরিচালনা পর্যদে আসেন সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ। বর্তমানে ব্যাংকটির চেয়ারম্যান হিসেবে রয়েছেন তার (সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ) স্ত্রী রুকমিলা জামান চৌধুরী। এছাড়া নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে রয়েছেন তার ভাই আনিসুজ্জামান চৌধুরী রনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here