ইউনাইটেড এয়ারে কমছে সাধারণ বিনিয়োগকারীর শেয়ার!

0
11656

সিনিয়র রিপোর্টার : সাধারণ বিনিয়োগকারীদের শেয়ার ধারণের পরিমাণ কমছে, যাচ্ছে প্রাতিষ্ঠানিক ও বিদেশি বিনিয়োগকারীদের হাতে। কোম্পানির বিপুল পরিমাণ কিনছে বিদেশি একটি কোম্পানি। কারণ, কোম্পানির ৪৯ শতাংশ শেয়ার বাজার মূল্যে বিদেশি একটি কোম্পানির কাছে বিক্রি করার আভাস মিলেছে।

ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ (বিডি) লিমিটেডের সম্ভাবনার এমন বিশেষ তথ্য নাম প্রকাশ না করার শর্তে ঊর্ধতন এক কর্মকর্তা শনিবার প্রকাশ করেন। তিনি স্টক বাংলাদেশকে বলেন, মে মাসে তাদের সঙ্গে বৈঠক করা হয়েছে। চলতি জুলাই মাস থেকে তারা বাজার থেকে শেয়ার কেনা শুরু করেছে।

তবে তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করতে কোম্পানির চেয়ারম্যান এবং নিয়ন্ত্রক সংস্থার কেউ এ বিষয়ে মন্তব্য করতে সম্মতি জ্ঞাপন করেননি।

‘কোন শর্তে তারা শেয়ার কিনছে’ বলা হলে তিনি জানান, বিমানের ফ্লাইং অপারেশন তারা (বিদেশি) করতে চান। এছাড়াও অনেক বিষয় রয়েছে, যা আগামীতে প্রকাশ করা হবে। এ বিষয়ে একটি চিঠি নিয়ন্ত্রক সংস্থার কাছেও দেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

অনুসন্ধানে আরো একটি সূত্র জানায়, চলতি বছরের মে মাসে দুটি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে প্রথম বৈঠক হয়। সে ধারাবাহিকতায় চলতি জুলাই মাসের শেষে আবারো বৈঠক হয়েছে। আগামী আগস্ট বা চলতি মাসের শেষে হংকং ভিত্তিক বিদেশি কোম্পানিটির একটি প্রতিনিধি দল বাংলাদেশে আসবে।

তারা ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ (বিডি) লিমিটেডের অফিস-বিমান পরিদর্শন, নিয়ন্ত্রক সংস্থা এবং উভয় স্টক এক্সচেঞ্জ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠক করবে বলে আভাস মিলেছে। যে কারণে বিশাল সম্ভাবনার পথে হাঁটছে কোম্পানিটি। ফলে রোজ কমছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের শেয়ার।

চলতি বছরের মে মাসের শুরুতে ৫ কোটি ২৮ লাখ ৮ হাজার ৮০০ শেয়ার ১০ টাকা মূল্যে ধারণ করেছে সুইফট এয়ার কার্গো প্রাইভেট নামের (Swift Air Cargo Pte Limited)  বিদেশী একটি কোম্পানি। বিদেশি প্রতিষ্ঠানটি দুটি বোয়িং বিমান ইউনাইটেড এয়ারওয়েজকে দেয়ার নামে এই শেয়ার ধারণ করেছে। এরপরই যুক্ত হচ্ছে আরো ৫টি বিমানের শেয়ার হস্তান্তর প্রক্রিয়া। তবে এবারে সে প্রক্রিয়া নয়, কোম্পানির মোট শেয়ারের ৪৯ শতাংশ বিক্রি করার আভাস মিলেছে।

তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করতে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ (বিডি) লিমিটেডের  চেয়ারম্যান  ক্যাপ্টেন তাসবিরুল আহমেদ চৌধুরী মন্তব্য করতে রাজী হননি। একই সঙ্গে নিয়ন্ত্রক সংস্থার কাছে জানতে চাইল কর্তৃপক্ষও কিছুই জানাতে চাননি।

শনিবার, ১৫ জুলাই ডিএসই থেকে নেয়া চিত্র

তবে ডিএসইতে বিদেশি কোম্পানির শেয়ার ধারণের কিছু প্রমাণ মিলেছে। মে মাসে প্রাতিষ্ঠানিক শেয়ার ধারণের পরিমাণ ছিল ২৫.৪৮ শতাংশ, বর্তমানে তা সামান্য বেড়ে হয়েছে ২৬.৯৬ শতাংশ। নতুন করে কমছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের শেয়ার। অন্যদিকে বিদেশি ও প্রাতিষ্ঠানিক কোম্পানির শেয়ার ধারণের পরিমাণ আরো বাড়বে।

(আরো তথ্য সংগ্রহে অনুসন্ধান চলছে। শিগগিরই স্টক বাংলাদেশ নতুন প্রতিবেদন প্রকাশ করবে)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here