বিশেষ প্রতিনিধি : আরএসআরএম স্টিল নিয়ে বাজারে শুরু হয়েছে রিউমার বা গুজব। রাজধানীর অফিস পাড়ায় অনেকে বলছেন ‘দর ১০০ টাকায় যাবে’। দর প্রবৃদ্ধির ইঙ্গিত দিচ্ছেন আরো অনেক মহল।

অনেক বিনিয়োগকারীর মুখে ভাসছে এমন তথ্য। যে কারণে ‘গুঞ্জনে-গুজবে’ এগিয়ে যাচ্ছে  কোম্পানির শেয়ারপ্রতি দর এবং বাড়ছে লেনদেন। বাতাস ভারী হচ্ছে প্রতিদিন- আরো বাড়বে দর, আরো বাড়বে শেয়ারের দর। রাজধানীর অফিস পাড়া, মহানগর এবং ট্রেড হাউসগুলোতে গুঞ্জন এবং গুজব।

স্টক বাংলাদেশ -এর অনুসন্ধানে রিউমারের কেন্দ্রবিন্দু হলো ফেসবুকের মাধ্যমে পরিচালিত হচ্ছে এমন কয়েকটি গ্রুপ। ব্যক্তি পর্যায়েও বিনিয়োগকারী অনেকে এমন রিউমার সৃষ্টিকারীদের সঙে আছেন। যে কারণে তর-তর করে বাড়ছে শেয়ারের দর। কিছু মানুষের জন্য শেয়ারপ্রতি দর বৃদ্ধি শুভ, তবে বেশিরভাগ মানুষের কাছে তা অশুভ ইঙ্গিত বহন করছে। নিচের চিত্র দেখুন-

Screenshot_9বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, আরএসআরএম ১৫ নভেম্বর থেকে শেয়ার দর বাড়তে থাকে। এ সময় কোম্পানির দর ছিল ৩৯ টাকা। এরপর কোম্পানির শেয়ার দর বেড়ে ১৪ ডিসেম্বর, বুধবার তা ৬৫.৮০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে। যা শতাংশের দিক দিয়ে প্রায় ৬৫ শতাংশ বেড়েছে।

রিউমার নিয়ে অনুসন্ধান করলে দেখা যায়, দর বাড়ার পিছনে রয়েছে কয়েকটি ফেসবুক গ্রুপ। যারা ফেসবুকে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের ফাঁদে ফেলার অশুভ চেষ্টা করছে।

স্টক বাংলাদেশের অনুসন্ধানে মেলে কিছু চিত্র- নিচে দেখুন

1
3 4 5 6 7অনুসন্ধানে উঠে আসে আরও চাঞ্চল্য তথ্য। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ফেসবুকিয়ান বলেন, ফেসবুকে যেসব রিউমার চালানো হয় তা সাধারনত একটি লেবেলের পক্ষ থেকে। শেয়ার দর যখন ৩০-৫০% ওপরে চলে আসে তখন চলে রিউমার। মূলত সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাই রেটে শেয়ার কেনার উৎসাহী করে তোলাই তাদের উদ্দেশ্য। এর মধ্যে কেউ কেউ প্রফিট পান। তবে বেশির ভাগই লস টেক করে। তারা বড় ক্ষতির মুখে পড়েন।

অন্যদিকে, কোম্পানির নিউজ থেকে জানা যায়- ইতোমধ্যে কোম্পানির দুজন ডিরেক্টর ৫ লাখ শেয়ার সেল করেছেন। কোন ইঙ্গত বহন করছে!

Screenshot_10উল্লেখ্য, রতনপুর স্টিল রি-রোলিং মিলস লিমিটেড (আরএসআরএম) কিছুদিন আগে সমাপ্ত হিসাব বছরের ঘোষিত নগদ লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের ব্যাংক হিসাবে পাঠিয়েছে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্র জানায়, ৩০ জুন ২০১৫ সমাপ্ত হিসাব বছরে রতনপুর স্টিল রি-রোলিং মিলস লিমিটেড (আরএসআরএম) শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ২৫ শতাংশ লভ্যাংশ ঘোষণা করে, যার ২০ শতাংশ বোনাস আর ৫ শতাংশ নগদ।

কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪ টাকা ৩৬ পয়সা। শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৪৫ টাকা ৬৩ পয়সা।

2 COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here