স্টাফ রিপোর্টার: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ইনডেক্সে ১৮ ফেব্রুয়ারী, রবিবার বড় মাত্রার বেয়ারিশ ক্যান্ডেল দেখা গেছে। মার্কেট দিনের শুরু থেকেই নেগেটিভ ছিল। দর দামও আস্তে আস্তে হ্রাস পেয়েছে। ফলে সেই ধারাতেই বাজার ৯৯.৪৪ পয়েন্ট নিচে নেমে বেয়ারিশ ক্যান্ডেল তৈরি করেছে।
টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস অনুযায়ী গত দিনের বেয়ারিশ ক্যান্ডেলের পর আবারও লাল বর্ণের ক্যান্ডেল দেখা গেছে। দিনের শুরুতে সেল পেশারে মার্কেটে ক্রমান্বয়ে দর পতন লক্ষ্য করা যায়। মূলত মার্কেট শুরুতেই ক্যান্ডেল সাপোর্ট লেভেল ভেঙে নিচে পড়ে যায়। মার্কেট বর্তমানে শর্ট-টার্ম সাপোর্ট জোনে অবস্থান করছে। এই ধারা অব্যাহত থাকলে মার্কেট আরও কমতে পারে। পরের দিন কর্ম দিবসে যদি ভাল পরিমাণ বাইয়ার চলে আসে তাহলে হয়ত মার্কেট দিক পরিবর্তন করতে পারে। তবে এই ধারা অব্যাহত থাকলে শর্ট-টার্ম সাপোর্ট লাইন ভেঙে মার্কেট মেজর সাপোর্টের দিকে চলে যাবে বলে মনে হয়।

ডিএসই সাধারন সূচক দিন শেষে আগের চেয়ে অনেক নিচে আছে। দিন শেষে ইনডেক্স গত দিনের চেয়ে ৯৯.৪৪ পয়েন্ট বা ১.৬৪% কমেছে। বাজারে সর্বমোট ৩৩৬টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের মধ্যে দাম বৃদ্ধি পেয়েছে মাত্র ৪৯টি প্রতিষ্ঠানের, হ্রাস পেয়েছে ২৭০টির আর অপরিবর্তিত ছিল ১৭টি কোম্পানির। আজকের মোট লেনদেনের মূল্য দাঁড়িয়েছে ৪৪০ কোটি টাকায় আর মোট লেনদেন হয়েছে ১ লাক্ষ ১৬ হাজার ৪৭টি শেয়ার।
এদিকে পরিশোধিত মূলধনের দিক থেকে দেখা যায় দর বৃদ্ধির দিক দিয়ে গত দিনের তুলনায় আজকে পিছিয়ে আছে মার্কেট। দেখা যাচ্ছে আজ শুধু ০-১০ কোটি টাকার ৯টি শেয়ারের মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে যা গত দিনের তুলনায় ১২.৫০% বেশি। বাকি ১০-৩০ কোটি টাকার ১২টি শেয়ার, ৩০-৫০ কোটি টাকার ১০টি শেয়ার, ৫০-১০ কোটি টাকার ৯টি শেয়ার, ১০০-২০০ কোটি টাকার ৫টি, ২০০ কোটির বেশি ৫টি শেয়ারের দর বেড়েছে যা গত দিনের তুলনায় যথাক্রমে ২০%, ১৬.৬৭%, ৩৫.৭১%, ৭৫% এবং ২৮.৫৭% কম।

পিই রেশিওর ভিত্তিতে দেখা যায় দর বৃদ্ধি পাওয়া কোম্পানির পরিমাণ আগের দিনের চেয়ে কমেছে। দেখা যাচ্ছে ০-১০ পিই রেশিওর শেয়ারের ১টি শেয়ারের দর বেড়েছে যা গত দিনের তুলনায় ৮৫.৭১% কম। ১০-২০ পিই রেশিওর ১৫টি, ২০-৪০ পিই রেশিওর ১০টি, ৪০-১০০ পিই রেশিওর ৭টি কোম্পানির দর বৃদ্ধি পেয়েছে যা গত দিনের তুলনায় যথাক্রমে ৩৭.৫%, ৫২.৩৮%, ২২.২২% এবং ৫৫.১৭% কম। ১০০ এর বেশি পিই রেশিওর ১৩টি কোম্পানির দর বৃদ্ধি পেয়েছে যা গত দিনের সমান।
ক্যাটাগরির দিক থেকে অবশ্য ভিন্ন চিত্র দেখা যায়। এ-ইকিউ ক্যাটাগরির ১টি শেয়ার এবং বি-ইকিউ ক্যাটাগরির ৫টি শেয়ারের দর বৃদ্ধি পেয়েছে যা গত দিনের তুলনায় যথাক্রমে ৯৮.২৭% এবং ১৬.৬৭% কম। অন্যদিকে এ-এমএফ ক্যাটাগরির ২৮টি এবং জেড-ইকিউ ক্যাটাগরির ৬টি শেয়ারের দাম বেড়েছে যা গত দিনের তুলনায় যথাক্রমে ৩০০% এবং ২০% বেশি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here