নিম্ন আয়ের বৃত্ত ভেঙে বেরিয়ে আসা বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রযাত্রায় হিসাববিজ্ঞান শিক্ষার প্রসার এবং এর প্রয়োগ নিশ্চিত করা জরুরি। এজন্য পেশাজীবি হিসাববিদ ও শিক্ষাবিদদের মধ্যে নিবিড় যোগাযোগ গড়ে তোলা চাই।

যাতে করে তাত্ত্বিক শিক্ষার সঙ্গে স্থানীয় ও বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে ব্যবস্থাপনা হিসাববিদ্যার প্রয়োগ-বাস্তবতায় যে শূন্যতা রয়েছে তা পূরণ করে জাতীয় অর্থনীতিকে এগিয়ে নেওয়া যেতে পারে -এটিই এ সময়ের চ্যালেঞ্জ।

সম্প্রতি ‘দ্য ইন্সটিটিউট অব কস্ট অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট একাউন্ট্যান্টস অব বাংলাদেশ (আইসিএমএবি) আয়োজিত একাউন্টিং এডুকেটরস কনফারেন্সে এসব বক্তব্য তুলে ধরেন আলোচকরা। আইসিএমএবি ভবনে শনিবার ‘রিসেন্ট ডেভেলপমেন্ট ইন দ্য ফিল্ড অব ম্যানেজমেন্ট একাউন্টিং অ্যান্ড কর্পোরেট রিপোর্টিং’ শীর্ষক দিনব্যাপী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

দেশে কস্ট অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট একাউন্টিং শিক্ষার সম্প্রসারণ এবং পেশাজীবি হিসাববিদ ও শিক্ষাবিদদের মাঝে নিবিড় সম্পৃক্ততার ক্ষেত্র গড়ে তোলার লক্ষ্যে আয়োজিত এই সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব শুভাশীষ বসু এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান ও আইসিএমএবি‘র সাবেক সভাপতি এ কে এম দেলোয়ার হোসেন এফসিএমএ।

এতে অংশ নেন সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়সমূহের একাউন্টিং ও বিজনেস স্টাডিজ ডিপার্টমেন্টের ফ্যাকাল্টি মেম্বার এবং ২৫টি জেলাপর্যায়ের কলেজ থেকে আগত প্রভাষক ও অধ্যাপকরা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্যসচিব শুভাশীষ বসু বলেন, ‘হিসাববিজ্ঞান একটি ক্রমবিকাশমান পেশা। এর প্রয়োগ ক্ষেত্রে সারা বিশ্বেই দ্রুত পরিবর্তন ঘটছে। ফলে এ পেশার সঙ্গে সম্পৃক্ত শিক্ষাবিদ ও পেশাজীবীদের সময়ের সাথে সাথে নিজেদের আপডেট করে নিতে হবে এর প্রয়োগ বাস্তবতায় সংঘটিত পরিবর্তনগুলোর সঙ্গে। ভিশন ২০২১-এর লক্ষ্য অর্জন এবং মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হওয়ার ক্ষেত্রে বাংলাদেশে ব্যয় ও ব্যবস্থাপনা হিসাববিদ্যায় দক্ষতাসম্পন্ন পেশাজীবী শ্রেণী গড়ে তোলার ওপরও গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন আইসিএমএবি’র সভাপতি জামাল আহমেদ চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্য দেন আইসিএমএবি‘র শিক্ষা কমিটির চেয়ারম্যান ও সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ সেলিম এফসিএমএ এবং সমাপনী বক্তব্য রাখেন আইসিএমএবি’র সচিব মো. আবদুর রহমান খান এফসিএমএ।

অনুষ্ঠানে তিনটি ট্যাকনিক্যাল সেশনে সভাপত্বি করেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) কমিশনার ও আইসিএমএবি’র কোষাধ্যাক্ষ  ড. স্বপন কুমার বালা এফসিএমএ, আইসিএমএবি‘র সাবেক সভাপতি এম আবুল কালাম মজুমদার এফসিএমএ এবং ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের  একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেম বিভাগের অধ্যাপক ও আইসিএমএবি’র সাবেক সভাপতি প্রফেসর মমতাজ উদ্দিন আহমেদ এফসিএমএ।

তিনটি প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন চট্রগ্রাম বিশ্ব বিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মো: সেলিম উদ্দিন এফসিএমএ, ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের সহযোগি অধ্যাপক ড. মেহেদী মাসুদ মজুমদার এসিএমএ, সহযোগি অধ্যাপক মুশফিকুর রহমান এসিএমএ।

আলোচনায অংশ নেন এ কাশেম এন্ড  কোং এর পার্টনার মিস আক্তার সানজিদা কাশেম এফসিএ, এফসিএমএ, গ্র্যাস্কোস্মীথক্লাইন এর অর্থ পরিচালক মিস  জিনিয়া তানজিনা হক এফসিএমএ, প্রাইম ব্যাংকের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো: তৌহিদুল আলম খান এফসিএমএ ও ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ এর সিইও জনাব আব্দুল মতিন পাটোয়ারি এফসিএমএ। বিজ্ঞপ্তি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here