আইপিও প্রক্রিয়ায় ৫টি কোম্পানি

0
5420

স্টাফ রিপোর্টার : আইসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেডের হাত ধরে পুঁজিবাজারে আসার অপেক্ষায় আছে পাওয়ার, ওষুধ ও রসায়ন এবং বস্ত্র খাতের ৫টি কোম্পানি। এদের মধ্যে ৪টি কোম্পানি প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে বাজারে শেয়ার ছেড়ে মূলধন সংগ্রহে আগ্রহী। আর একটি কোম্পানি বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে টাকা তুলতে ইচ্ছুক।

কোম্পানিগুলো হচ্ছে- সামিট উত্তরাঞ্চল পাওয়ার কোম্পানি লিমিটেড, লুব-রিফ (বাংলাদেশ) লিমিটেড, একমি ল্যাবরেটরিজ, হামিদ ওয়েভিং ও গুলশান স্পিনিং লিমিটেড।

জানা গেছে, কোম্পানি ৫টির মধ্যে সামিট উত্তরাঞ্চলের প্রাথমিক কাজ শেষ পর্যায়ে। এটি এখন কমিশন বৈঠকে ওঠার অপেক্ষায়। আর একমি ল্যাবরেটরিজ সম্প্রতি নির্দেশক মূল্য নির্ধারণ করে তা বিএসইসিতে জমা দিয়েছে।

লুব-রিফ (বাংলাদেশ) লিমিটেড ও গুলশান স্পিনিংয়ের আইপিও আবেদন বিএসইসিতে খুব শিগগির জমা দেওয়া হবে বলে জানা গেছে। হামিদ ওয়েভিং নিয়ে অনেক দূর এগিয়েছে বলে জানিয়েছে আইসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড।

সামিট উত্তরাঞ্চল বাজারে ৪০ টাকা দরে শেয়ার বিক্রি করতে চায়। তবে সব কিছুই নির্ভর করবে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) অনুমোদনের উপর।

একমি ল্যাবরেটরিজ বাজারে ৫ কোটি শেয়ার ছাড়বে। এর মাধ্যমে কত টাকা তোলা যাবে তা এখনো চূড়ান্ত হয় নি। সব কিছু চূড়ান্ত হবে বিডিং এর পর। তবে তারা ৮০ টাকা দরে বিএসইসিতে নির্দেশক মূল্য জমা দিয়েছে। প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে প্রথমে তাদের জন্য সংরক্ষিত শেয়ার বিক্রি করা হবে। যে দামে তাদের কাছে শেয়ার বিক্রি করা শেষ হবে, সেই দামে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে শেয়ার বিক্রির প্রস্তাব করা হবে।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে আইসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মশিউর রহমান বলেন, আমরা বর্তমানে ৫টি কোম্পানি আইপিও’র মাধ্যমে বাজারে আনার জন্য কাজ করছি। এদের মধ্যে সামিট উত্তরাঞ্চলের কাজ শেষ পর্যায়ে। বাকী ৪টির মধ্যে একমির প্রসপেক্টাস জমা দিয়েছি। অন্য কোম্পানিগুলো বাজারে আনার প্রক্রিয়া চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here