free hit counters
Home আই পি ও আইপিও পাইপ লাইনে যেসব কোম্পানি

আইপিও পাইপ লাইনে যেসব কোম্পানি

5676
0

শাহীনুর ইসলাম : নতুন এবং পুরাতন মিলে অনেক কোম্পানি পুঁজিবাজারে আসছে চায়। ইতোমধ্যে কোম্পানিগুলো অনেকে প্রস্তুতিও সম্পন্ন করেছে। তবে নিয়ন্ত্রক সংস্থার বিধি অনুযায়ী শর্ত পূরণ করতে না পারায় প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) অনুমোদন পেতে বিলম্ব হচ্ছে।

বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে ইতোমধ্যে রোডশো সম্পন্ন করে বেশিরভাগ কোম্পানি কাট-অব প্রাইস নির্ধারণের অপেক্ষায় রয়েছে। একই সঙ্গে কাট-অব প্রাইস নির্ধারণসহ সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে কয়েকটি কোম্পানি পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চূড়ান্ত অনুমোদনের অপেক্ষা করছে বলে বিশেষ সূত্র জানায়।

এডিএন টেলিকম লিমিটেড : বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে পুঁজিবাজারে আসছে এডিএন টেলিকম লিমিটেড। কাট অফ প্রাইস বা প্রান্তসীমা মূল্য ৩০ টাকা নির্ধারণ শেষে কোম্পানির কর্তৃপক্ষ প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে (আইপিও) চূড়ান্ত অনুেমোদনের জন্য অপেক্ষা করছে। তবে চলতি মার্চ বা এপ্রিল মাসে এডিএন টেলিকমের আইপিও অনুমোদন পাওয়ার আভাস মিলেছে।

অনুমোদন আভাস সম্পর্কে কথা হলে এডিএন টেলিকম লিমিটেডের সেক্রেটারি মনির হোসেনও প্রত্যাশার কথা জানান।

তিনি বলেন, কাট-অফ প্রাইস নির্ধারণ শেষে আমরা কোম্পানির প্রফাইল কমিশনে উপস্থাপন করেছি। কমিশন অত্যান্ত সুবিবেচক, তারা শিগগিরই ব্যবস্থা নেবেন। তবে আশা করছি, আগামী মার্চ মাসে অনুমোদন মিলতে পারে।

কাট অফ প্রাইস বা প্রান্তসীমা মূল্য ৩০ টাকা নির্ধারণ করেছেন যোগ্য প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা (ইআই)। বুক বিল্ডিংয়ের নিয়মানুসারে কাট অফ প্রাইসের ১০ শতাংশ কমে অর্থাৎ ২৭ টাকায় সাধারণ বিনিয়োগকারীরা কোম্পানিটির ২১ কোটি ৩৭ লাখ ৫০ হাজার টাকার শেয়ার কিনতে পারবেন।

এনার্জিপ্যাক পাওয়ার : বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজারে আসছে বিদ্যুত ও জ্বালানি খাতের কোম্পানি এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেড (ইপিজিএল)। বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে ফেব্রুয়ারি বা মার্চ মাসে বিডিংয়ের অনুমোদন পাচ্ছে বলে আভাস মিলেছে।

ওয়ালটন : রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় ওয়ালটনের করপোরেট অফিসের সম্মেলন কক্ষে ১৫ জানুয়ারি রোড শো সম্পন্ন করেছে ওয়ালটন। কোম্পানিটি বুকবিল্ডিং পদ্ধতির আইপিওর মাধ্যমে বাজারে নতুন শেয়ার বিক্রি করে ১০০ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে।

উত্তোলিত অর্থ কোম্পানির কারখানা সম্প্রসারণ, আধুনিকায়ন, গবেষণা ও মান উন্নয়ন, আংশিক ব্যাংক ঋণ পরিশোধ এবং আইপিও খরচ মেটাতে ব্যয় করা হবে। তবে এটি কোম্পানির আইপিওর ঘোষিত উদ্দেশ্য হলেও মূল উদ্দেশ্য অনেকটাই ভিন্ন।

শামসুল আলামিন রিয়েল এস্টেট : বুক বিল্ডিং পদ্ধতির প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে ৮০ কোটি টাকা মূলধন সংগ্রহ করতে চায় আবাসন কোম্পানি শামসুল আলামিন রিয়েল এস্টেট লিমিটেড। অর্থের ৭৭ শতাংশ ব্যবসা সম্প্রসারণে বিনিয়োগ করার ঘোষণা দিয়েছেন কোম্পানির উদ্যোক্তারা। এর অংশ হিসেবে চলমান বাণিজ্যিক ও আবাসিক নির্মাণ প্রকল্পের কাজ এগিয়ে নেবেন তারা।

পপুলার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড : বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে পুঁজিবাজার থেকে ৭০ কোটি টাকা উত্তোলন করতে চায় । যার বড় একটি অংশ কোম্পানির ব্যবসা সম্প্রসারণের কাজে লাগানো হবে। এর মাধ্যমে ওষুধ শিল্পে নিজেদের অবস্থান আরও শক্ত করতে চায় কোম্পানিটি। আগামী ২৪ অক্টোবর রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে কোম্পানিটির রোড শো সম্পন্ন হবে।

ইনডেক্স এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড : বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে পুঁজিবাজারে আসতে আগামী ১৮ অক্টোবর রোড শো রাজধানীর ট্রাস্ট মিলনায়তনে সন্ধ্যা ৭টা ১৫ মিনিটে অনুষ্ঠিত হবে। কোম্পানিটিকে আইপিওতে আনতে ইস্যু ম্যানেজারের দায়িত্ব নিয়েছে এএফসি ক্যাপিটাল লিমিটেড ও ইবিএল ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

রবি আজিয়াটা : চলতি বছরের শেষে পুঁজিবাজারে আসছে টেলিকম খাতের অন্যতম বড় কোম্পানি রবি। কোম্পানিটির প্রধান আর্থিক কর্মকর্তা (সিএফও) প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে আসার আভাস দিয়েছেন। সম্প্রতি চ্যারি টিভিটিতে রবি-এয়ারটেল একীভূত হওয়া প্রসঙ্গে আলোকপাত করলে আইপিওতে আমার কথা বলেন। মালয়েশিয়ায় শুরু হওয়া ‘রিজিওনাল মিডিয়া সামিট’ শীর্ষক তিন দিনের এক অনুষ্ঠানে এ কথা জানানো হয়।

বেঙ্গল পলি অ্যান্ড পেপার স্যাক লিমিটেড : বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে পুঁজিবাজারে আসতে কোম্পানিটি রাজধানীর গুলশানে লেকশোর হোটেলে গত বছরের ৯ অক্টোবর, রোববার সন্ধ্যা ৭টায় রোড শো সম্পন্ন করেছে। ৩০ জুন ২০১৬ হিসাববছরের আর্থিক প্রতিবেদনে বাজারে আসতে চায় কোম্পানিটি।আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির বিক্রির পরিমাণ ছিল ৮২ কোটি ১৮ লাখ ১১ হাজার টাকা। কর পরবর্তী আয় হয়েছে ৭ কোটি ৫৯ লাখ ১৩ হাজার টাকা। এ সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২ টাকা ৭১ পয়সা ও শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ৩৮ টাকা ৬৮ পয়সা।

ডেল্টা হসপিটাল লিমিটেড : প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে বাজারে শেয়ার ছেড়ে ৫০ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে। বুকবিল্ডিং পদ্ধতিতে বাজারে আসতে কোম্পানিটি ইতোমধ্যে রোড শো সম্পন্ন করেছে।

ফাইবার অ্যাট হোম লিমিটেড : পুঁজিবাজারে আসতে প্রস্তুতি নিচ্ছে অপটিক্যাল ফাইবার নেটওয়ার্ক নামে সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানটি। বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) কাছ থেকে প্রাপ্ত লাইসেন্সের শর্ত পরিপালনে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হবে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের কোম্পানিটি। কেম্পানির নির্ভরযোগ্য একটি সূত্র এমন তথ্য নিশ্চিত করেছে।

স্টার সিরামিকস : পুঁজিবাজার থেকে অর্থ উত্তোলন করে ব্যবসা সম্প্রসারণ করতে চায় স্টার সিরামিকস লিমিটেড। আর এ লক্ষে শেয়ার ছেড়ে কোম্পানিটি ৬০ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। রাজধানীর রেডিসন হোটেলে গত বছরের ৩১ মার্চ রোড শো সম্পন্ন করা হয়েছে।

নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনে (বিএসইসি) অনুমতি পেলে প্রথমে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের এবং পরে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে শেয়ার বিক্রি হবে।উত্তোলিত অর্থের মধ্যে ৪৩ কোটি ৩১ লাখ টাকা স্যানিটারি ওয়্যার প্লান্ট নির্মাণ, ঋণ পরিশোধে ১৩ কোটি ১৯ লাখ টাকা এবং আইপিও বাবদ খরচ করা হবে সাড়ে ৩ কোটি টাকা। কোম্পানির প্রতিটি শেয়ারের অভিহিত মূল্য হবে ১০ টাকা।

ঠাকরাল ইনফরমেশন সিস্টেমস লিমিটেড : দীর্ঘ ১০ বছর পর পুঁজিবাজারে আসছে আরেক বহুজাতিক কোম্পানি। কোম্পানিটি হলো আইটি কোম্পানি ঠাকরাল ইনফরমেশন সিস্টেমস লিমিটেড। বাংলাদেশে জয়েন্টভেঞ্চার এবং আইটি খাতের বহুজাতিক কোম্পানিটি বাংলাদেশ ছাড়াও বিশ্বের ২৪টি দেশের কাজ করছে। দেশের ব্যাংকগুলোর সফটওয়্যার সলিউশনের কাজ সম্পৃক্ত রয়েছে কোম্পানিটি।

লুব-রেফ (বাংলাদেশ) : ব্যবসা সম্প্রসারণ ও ব্যয়বহুল ঋণ পরিশোধে পুঁজিবাজার থেকে ১৫০ কোটি টাকা মূলধন উত্তোলন করতে চায় বেসরকারি খাতে দেশের প্রথম লুব্রিক্যান্ট ব্লেন্ডিং কোম্পানি লুব-রেফ (বাংলাদেশ) লিমিটেড। গত বছরে হোটেল রেডিসন ব্লুতে রোড শো অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শেয়ারবাজার থেকে অর্থ উত্তোলন করে ৯৮ কোটি টাকা দিয়ে ব্যবসা সম্প্রসারণ, ৪৬ কোটি টাকা দিয়ে ব্যাংক ঋণ পরিশোধ এবং আইপিওতে ব্যয় করবে কোম্পানিটি। তবে আইপিও আসতে কোম্পানির কার্যক্রম ঝিমিয়ে পড়েছে।

অন্যদিকে ফ্রিক্সড প্রাইসে পাইপলাইনে রয়েছে আরো অনেক কোম্পানি। তা হলো- আফতাব হ্যাচারি, সামসুল আল-আমিন রিয়েল এস্টেট, অ্যালায়েন্স হোল্ডিংস, আমান সিমেন্ট, এভিয়েন্স ইন্স্যুরেন্স, এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্স, গ্যালাক্সি সোয়েটার অ্যান্ড ইয়ার্ন ডায়িং, এনার্জিপ্যাক পাওয়ার কোম্পানি লিমিটেড।

তালিকায় আরো রয়েছে- রাষ্ট্রায়ত্ব কোম্পানি আশুগঞ্জ পাওয়ার, আইএফসিও গার্মেন্টস অ্যান্ড টেক্সটাইলস, আইটি কনসালট্যান্টস, করিম স্পিনিং মিলস, লিডস করপোরেশনস, মদিনা সিমেন্ট ইন্ডাস্ট্রিজ, মোহাম্মদ ইলিয়াস ব্রাদার্স পলি ম্যানুফ্যাকচারিং, মাইমকো জুট মিলস, ন্যাশনাল ফাইন্যান্স, অটবি ও সুপ্রিম সিড।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here