আইপিওভুক্ত এস কে ট্রিমস এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজের আমলনামা

0
2278

সিনিয়র রিপোর্টার : প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে এস কে ট্রিমস এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড ৩০ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। কোম্পানিটিকে গত ২০ ফেব্রুয়ারি ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে ৩ কোটি শেয়ার ইস্যু করার অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

কোম্পানিটি পুঁজিবাজার থেকে উত্তোলিত অর্থ দিয়ে যন্ত্রপাতি ক্রয়, ভবন নির্মাণ এবং আইপিওর বাবদ ব্যয় করবে। বিনিয়োগকারীদের স্বার্থে আইপিও অনুমোদন পাওয়া কোম্পানিটির বিভিন্ন তথ্য উপস্থাপন করা হলো। আর এসব তথ্য কোম্পানির ওয়েবসাইট ও প্রোসপেক্টাস থেকে নেয়া হয়েছে।

২০১৪ সালে উৎপাদনে আসার পরে কোম্পানির আয় প্রতি বছরে বেড়েছে। ২০১৭ সালের ৩০ জুন প্রতিবদেন (প্রোসপেক্টাস) অনুসারে, ২০১৫ সালে কোম্পানির কর পরবর্তী আয় ছিলো ১৬ কোটি ২২ লাখ টাকা, ২০১৬ সালে ছিল ৪১ কোটি ১৪ লাখ টাকা এবং পরের বছরে  ২০১৭ সালে তা আরো বেড়ে হয়েছে ৫৩ কোটি ৫৩ লাখ টাকা।

আয় হিসেবে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) গড় হারে হয়েছে ১টাকা ৩১ পয়সা। তবে নাম প্রকাশ না করার শর্তে ‘কোম্পানির কোন ঋণ নেই’ বলে জানিছেন সিএফও।

এস কে ট্রিমস এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজের কারখানা গাজীপুর জেলার টঙ্গীতে (৪৫, মাদ্রাসা রোড, ১১১/৩৩, টিলারগাতী, সাতাইশ টঙ্গী, গাজীপুর-১৭১২) রয়েছে। গ্রাহকের চাহিদা বুঝে গার্মেন্টস এক্সেসরিজ পণ্য উৎপাদন ও বিপণন করে কোম্পানিটি।

গার্মেন্টস পণ্যগুলোর মধ্যে রয়েছে- বারকোড, সুইংথ্রেড, পেপার হ্যাং টাং, এলাস্টিক, কটন, পেপারকাট, টিস্যুপেপার, গাম পেপার ও বিভিন্ন ধরণের পলি নির্মাণ করে থাকে।

পণ্য ক্রেতা কোম্পানিগুলোর নাম ও স্থান

এসব পণ্য ক্রেতা কোম্পানিগুলো হলো- গাজীপুরের টঙ্গীতে অবস্থিত মসকো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, নারায়নগঞ্জের দেওয়ান ফ্যাশন ওয়্যার লিমিটেড, ঢাকা সাভারের জেনেটিক ফ্যাশন লিমিটেড, নারায়ণগঞ্জের আদমজীর স্ক্যানডেস্ক লিমিটেড, নারায়ণগঞ্জের ভুলতার রবিনটেক্স লিমিটেড, সাভারের আশুলিয়ার মোজার্ড নিটওয়্যার লিমিটেড এবং গাজীপুরের মল্লিকা ফ্রেব্রিক্স লিমিটেড। (ওপরের চিত্র দেখুন)

২০১৪ সালে ১ জুন উৎপাদনে আসা কোম্পানিটি কোন পণ্য বিদেশে রপ্তানী করা হয়না। দেশীয় কোম্পানির চাহিদার ভিত্তিতে উৎপাদন ও বিপণণ করে থাকে।

এস কে ট্রিমস এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ২০১৭ সালের ৩০ জুনের তথ্য অনুসারে, ৩৯৩ কোটি টাকার মোট সম্পদ রয়েছে। এরমধ্যে জমি রয়েছে ১৪৪ কোটি ৫১ লাখ টাকা, নির্মাণ খরচ বাবদ ১১৭ কোটি টাকার সম্পদসহ মোট ৩৯৩ কোটি টাকার সসম্পদ রয়েছে। (নিচের চিত্র দেখুন)

৩০ জুন, ২০১৭ সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) হয়েছে ১২ টাকা ৭৯ পয়সা। তিন বছরের অার্থিক প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) গড় হারে হয়েছে ১টাকা ৩১ পয়সা।

কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের তালিকা নিচে প্রকাশ করা হলো-

উল্লেখ্য, কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে ইম্পেরিয়াল ক্যাপিটাল লিমিটেড এবং বিএমএসএল ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here