আইপিওতেও নেই উচ্ছ্বাস, গ্যালারিতে নিরস প্রাণ

1
1372

রাহেল আহমেদ শানু : প্রাথমিক গণপ্রস্তাব (আইপিও) নিয়ে বিনিয়োগকারীদের এক সময়ে বেশ উচ্ছ্বাস ছিল। প্রচ- আগ্রহ নিয়ে যারা বিভিন্ন কোম্পানি আইপিও ড্র অনুষ্ঠানে ছিলেন, মাতিয়ে রাখতেন তারা চারদিক। হাসি-আনন্দ আর মুখরতা যা ছিল, এখন তা নেই। মাঝ বয়সী মানুষের নিরস বদন।

গ্যালারিজুড়ে ছিল মানুষ আর মানুষ। নানান বয়সী মানুষের কলরব। বাইরে ছিলনা তিল ফেলার ঠাঁই। নিরাপত্তারক্ষীকে থাকতে হতো সজাগ। আইপিওধারীর চোখে ও কোম্পানির লোকজনের পায়ে-পায়ে থাকতো ব্যস্ততা। কোম্পানির আইপিওতে বহুগুণ আবেদন পড়লেও আইপিও ড্র অনুষ্ঠানে উপস্থিতি নেই, খাখা করছে গ্যালারি। ঘরে-বাইরে সেই শুণ্যতা।

রাজধানীর রমনায় ইঞ্জিনিয়ার্স অব ইনস্টিটিউশনে মঙ্গলবার দুপুরে এ্যাডভেন্ট ফার্মার আইপিও লটারির অনুষ্ঠানে এমন দৃশ্য চোখে পড়ে। পুঁজিবাজারের আইপিও অনুষ্ঠানের সেকাল এবং একালে দৃশ্য বেশ ভাবিয়ে তোলে।

নেই তারুণ্যের প্রভাব। এখানে নেই কোন তরুণ বিনিয়োগকারী। বিরস, বিবর্ণ, আশাহীন কিছু মানুষ বসে আছেন। যেখানে নতুনত্বের ছোঁয়া নেই, তরুণদের আনাগোনা নেই, তার আগামী কি?

লটারির ড্র অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কোম্পানির চেয়ারম্যান ওয়াজি আহমেদ, ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. জাওয়েদ ইয়াহিয়া, সিএফও আনোয়ার হোসেন, কোম্পানি সচিব মহসিন মিয়া। আরো উপস্থিত ছিলেন- ইস্যু মানেজার ইম্পেরিয়াল ক্যাপিটালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সালাউদ্দিন শিকদার, সিএপিএম অ্যাডভাইজারির প্রধান নির্বাহী তানিয়া শারমীন ও ইউকাস বিডির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহবুব এইচ মজুমদার।

অনুষ্ঠানে দেখা যায়, গ্যারারির সামনের সারিতে বিনিয়োগকারীদের কিছু বিনিয়োগকারী। আর পেছনের সারিতে কিছু বিনিয়োগকারী বসে আছেন। মাঝের অংশ ফাঁকা। মঞ্চে বসে আছেন আইপিও আয়োজক কমিটি ও কোম্পানির নির্ধারিত কিছু কোম্পানির ঊর্ধতন কর্মকর্তা।

কোম্পানির কর্তৃপক্ষ জানায়, কোম্পানির চাহিদার তুলনায় প্রায় ৩৮ গুণ আবেদন জমা পড়েছে। আবেদন জমা পড়লে সেই বিনিয়োগকারীরা কোথায়? নেই, তারা সেই প্রাণের উচ্ছ্বাসের মেলায় নেই। যারা যোগানদাতা, তাদেরই শুন্যতা।

বেশিরভাগ অংশ এখন আর অনুষ্ঠানে আসেন না। আইপিও অনুষ্ঠানের গ্যালারির সামনের সারিতে কয়েকজন বয়ে যেন টোপ গিলছে। যারা এসেছেন, তাদের মুখও মলিন। যারা আবেদন করেছেন, তাদের বেশিরভাগ অংশ আসছেনা। দুপুরে গল্প করছেন, ডিএসইর আজ ১২২ পয়েন্ট সুচক পড়েছে। অন্যজন চাপা নিঃশ্বাস ফেলে জানতে চাইলো, কুইন সাউথের প্রথম লেনদেন কতো টাকায় শুরু হয়েছে?

 যারা এক সময়ে আইপিু ড্র অনুষ্ঠানে প্রাণের বাতাস বয়ে দিত, দিন বদলের হাওয়ায় তারা এখন আসেন না। যারা পুঁজিবাজার মাতিয়ে তুলেছিল, সময়ের ব্যবধানে বেশিরভাগ মানুষগুলো এখন পুঁজিবাজার বিচ্ছিন্ন।

বাইরে লোক নেই। উৎসব মুখর ভূমি আজ বড়ই জনবিরল। কি আশা আছে এই পুঁজিবাজারের? তবুও প্রাণে আশা জাগে- ভালো হবে আমাদের পুঁজিবাজার। ঠিক এক সময় ভালো কিছু আসবে।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here