ধারাবাহিকভাবে ডিভিডেন্ড দিয়ে যাচ্ছে আইডিএলসি

0
717

মোহাম্মদ তারেকুজ্জামান : আইডিএলসি ফাইন্যান্স লিমিটেড। ১৯৯২ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্ত কোম্পানিটির শেয়ার দর গত এক বছরে ধারাবাহিকভাবে কমেছে। শেয়ার দর কমে যাওয়ার পেছনে কোম্পানির কোন সংশ্লিষ্টতা থাকে না বলে স্টক বাংলাদেশকে জানান আইডিএলসি ফাইন্যান্স লিমিটেডের একজন উর্দ্ধতন কর্মকর্তা।

ওই কর্মকর্তার মতে, যারা কোম্পানির শেয়ার কেনেন বা বিক্রি করেন তাদের ওপর ভিত্তি করে শেয়ার দর বাড়ে বা কমে থাকে। তবে অন্যান্য বিষয় যাতে সঠিকভাবে পরিচালিত হয় সে বিষয়টি কোম্পানি গুরুত্বসহকারে দেখে। আইডিএলসি শেয়ারহোল্ডারদের স্বার্থ  অক্ষুণ্ন রেখে সকল রেগুলেটরি কমপ্লায়েন্স পরিপালনের মাধ্যমে কোম্পানির মুনাফা উত্তরত্ত্বর বৃদ্ধি ঘটাতে সচেষ্ট আছে। আর সবকিছু সঠিকভাবে পরিচালিত হওয়ায় গত বছর অর্থাৎ ২০১৭ সালে দক্ষিণ এশিয়ার সেরা আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের আইডিএলসি ফাইন্যান্স লিমিটেড প্রথম স্থান অধিকার করে সাউথ এশিয়ান ফেডারেশন অব অ্যাকাউন্ট্যান্টস (সাফা) কর্তৃক পুরষ্কার গ্রহণ করেছে। গত বছর অর্থাৎ ২০১৭ সালের ১০ অক্টোবর কোম্পানির ক্লোজিং প্রাইজ ছিল ৯০ দশমিক ১ টাকা। আর চলতি বছর অর্থাৎ ২০১৮ সালের ৯ অক্টোবর কোম্পানির ক্লোজিং প্রাইজ ছিল ৬১ দশমিক ৪০ টাকা।

‘এ’ ক্যাটাগরির কোম্পানিটি গত তিন বছরে বেশ ভালো প্রফিট করেছে; যা কোম্পানির ওয়েবসাইট সূত্রে জানা যা্য়। ২০১৫ সালে কোম্পানিটি প্রফিট করেছে ১৪৫ কোটি ৯২ লাখ টাকা। ২০১৬ সালে প্রফিট হয়েছে ১৭৮ কোটি টাকা। আর গত বছর ২০১৭ সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির প্রফিট হয়েছে ২২৭ কোটি ৭১ লাখ টাকা।

১ হাজার কোটি টাকার অনুমোদিত মূলধন কোম্পানি আইডিএলসি ফাইন্যান্স লিমিটেডের পরিশোধিত মূলধন ৩৭৭ কোটি টাকা। কোম্পানিটির রিজার্ভে রয়েছে ৭৫৬ কোটি ৬৪ লাখ টাকা।

কোম্পানির ওয়েবসাইট সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালে আইডিএলসি সাধারণ বিনিয়োগকারীদের ২৫ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড দিয়েছে। আর ২০১৬ ও ২০১৭ সালে কোম্পানিটি ৩০ শতাংশ করে ক্যাশ ডিভিডেন্ড দিয়েছে বিনিয়োগকারীদের। তবে ২০১৬ সালের তুলনায় ২০১৭ সালে কোম্পানির প্রফিটের পরিমাণ বাড়লেও ডিভিডেন্ড বৃদ্ধি পায়নি।

সাধারণ বিনিয়োগকারীদের প্রত্যাশা আইডিএলসি ডিভিডেন্ড দেয়ার ধারাবাহিকতা ধরে রাখবে। ভবিষ্যতে আরও বেশি ডিভিডেন্ড দেবে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের। তারা বলেন, অন্যান্য ফিন্যান্সিয়াল প্রতিষ্ঠানের তুলনায় আইডিএলসি বেশ ভালো করছে। অনেক প্রতিষ্ঠান গত বছর সাধারণ বিনিয়োগকারীদের ঠিকভাবে ডিভিডেন্ড দেয়নি। কেউবা নামমাত্র বোনাস ডিভিডেন্ড দিয়েছে সেখানে আইডিএলসি ধারাবাহিকভাবে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের ডিভিডেন্ড দিয়ে যাচ্ছে। এবং ক্যাশ ডিভিডেন্ড দিয়ে যাচ্ছে।

কোম্পানির ওয়েবসাইট সূত্রে আরও জানা যায়, প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানির শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ১ দশমিক ৪৬০ টাকা। এবং দ্বিতীয় প্রান্তিকে শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ১ দশমিক ৪৯০ টাকা। প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় দ্বিতীয় প্রান্তিকে শেয়ারপ্রতি আয় বৃদ্ধি পেয়েছে ০ দশমিক ০৩০ টাকা। আর দুই প্রান্তিক মিলে কোম্পানির শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ২ দশমিক ৯৫০ টাকা।

‘এ’ ক্যাটাগরির তালিকাভূক্ত কোম্পানিটির বর্তমানে ৩৭ কোটি ৭০ লাখ ৫০ হাজার ৭৮০টি শেয়ার রয়েছে। তার মধ্যে স্পন্সর ডিরেক্টরদের শেয়ার রয়েছে ৫৬ দশমিক ৬৬ শতাংশ। সাধারণ বিনিয়োগকারীদের শেয়ার রয়েছে ১২ দশমিক ৭৬ শতাংশ। প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের শেয়ার রয়েছে ১৭ দশমিক ১১ শতাংশ এবং বিদেশী বিনিয়োগকারীদের শেয়ার রয়েছে ১৩ দশমিক ৪৭ শতাংশ। গত ৫২ সপ্তাহে কোম্পানিটির শেয়ারদর ৫৭ টাকা থেকে ৯৫ টাকায় ওঠানামা করেছে।

 ১৪ অক্টোবর বিকাল ৪টায় কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদের সভা অনুষ্টিত হবে। সভায় কোম্পানির তৃতীয় প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করা হতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here