অধিকাংশ ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা বেড়েছে

0
1073

বিশেষ প্রতিনিধি : সুদের হার দুই অঙ্কের ঘরে, খেলাপি ঋণ বেড়ে যাওয়াসহ বর্তমানে ব্যাংকিং খাতে চলছে নানা অস্থিরতা। তবে রাজনৈতিক অস্থিরতা না থাকায় ঋণ প্রবৃদ্ধিতে গতি ছিল। আবার আমদানি-রপ্তানির বিপরীতে চার্জ ও কমিশন থেকেও ভালো আয় এসেছে।

শেয়ারবাজারে বড় কোনো পতন না হওয়ায় সেখান থেকেও কিছু মুনাফা হয়েছে। সব মিলিয়া চলতি বছরের প্রথম ছয় মাসে (জানুয়ারি-জুলাই) দেশের অধিকাংশ বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর পরিচালন মুনাফা বেড়েছে। এর মধ্যে বেশ কয়েকটি ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে।

এই পরিচালন মুনাফা থেকে ব্যাংকের ঋণ ও খেলাপি ঋণের বিপরীতে প্রভিশন সংরক্ষণ করতে হবে। ব্যাংকগুলোর খেলাপি ঋণের পরিমাণ বেড়ে যাওয়া এবং শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করে লোকসান দেয়ায় এর বিপরীতে প্রভিশনের পরিমাণ আরো বাড়বে। ফলে ব্যাংকগুলোর নিট মুনাফা আরো কমবে।

ব্যাংকগুলো বলছে, সার্বিকভাবে আগের বছরের তুলনায় বেসরকারি খাতে ঋণ প্রবাহ কিছুটা বেড়েছে। আমদানি খাতও অনেক গতিশীল ছিল। এ ছাড়া সার্ভিস চার্জ থেকেও মুনাফার একটি বড় অংশ এসেছে। এগুলোর প্রভাব মুনাফার ওপরে পড়েছে।

জানা গেছে, পরিচালন মুনাফাই ব্যাংকের প্রকৃত মুনাফা নয়। এর থেকে প্রয়োজনীয় প্রভিশনের পরে যে অর্থ থাকবে তা থেকে করের টাকা আলাদা করার পর নিট মুনাফা বেরিয়ে আসে।

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) নির্দেশনা অনুযায়ী, কোনো ব্যাংক তাদের অনিরীক্ষিত পরিচালন মুনাফা প্রকাশ করতে পারে না। এ কারণে ব্যাংকগুলোর অভ্যন্তরীণ বিভিন্ন সূত্র থেকে পরিচালন মুনাফার এসব তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে।

ব্যাংকগুলো থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লি. পরিচালন মুনাফা করেছে ১ হাজার ২০ কোটি টাকা। গত বছরের জুনে ব্যাংকটির পরিচালন মুনাফা ছিল ৮৮১ কোটি টাকা।

সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক লি. (এসআইবিএল) গত ছয় মাসে (জানুয়ারি-জুন) পরিচালন মুনাফা করেছে ২৭৫ কোটি টাকা। ২০১৭ সালের জুন শেষে ব্যাংকটির পরিচালন মুনাফা ছিল ২৫৫ কোটি টাকা।

বেসরকারি খাতের সাউথইস্ট ব্যাংক গত ছয় মাসে পরিচালন মুনাফা করেছে ৪৫৬ কোটি টাকা। ২০১৭ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত পরিচালন মুনাফা ছিল ৪১১ কোটি টাকা।

ব্যাংক এশিয়া গত ছয় মাসে পরিচালন মুনাফা করেছে ৪১৭ কোটি টাকা। ২০১৭ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত পরিচালন মুনাফা ছিল ৩০৭ কোটি টাকা। এক্সিম ব্যাংক পরিচালন মুনাফা করেছে ৩২৫ কোটি টাকা। এই ব্যাংকটির গত বছরের জুনে পরিচালন মুনাফা ছিল ৩২০ কোটি টাকা।

ইস্টার্ন ব্যাংক পরিচালন মুনাফা করেছে ৩৬৫ কোটি টাকা। আগের বছরের জুনে ব্যাংকটির পরিচালন মুনাফা ছিল ৩৭০ কোটি টাকা।

মার্কেন্টাইল ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা এক কোটি টাকা বেড়ে ৩২৫ কোটি টাকা হয়েছে। আগের বছরে একই সময়ে ব্যাংকটির পরিচালন মুনাফা ছিল ৩২৪ কোটি টাকা।

পূবালী ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা দাঁড়িয়েছে ৪৫০ কোটি টাকার কিছু বেশি। গত বছরের এই সময়ও ব্যাংকটির পরিচালন মুনাফা এ রকমই ছিল। তবে ওই বছর শেয়ার থেকে কিছু আয় হলেও এবার বেশিরভাগ আয়ই এসেছে ‘কোর ব্যাংকিং’ থেকে।

ন্যাশনাল ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা দাঁড়িয়েছে ৩২৭ কোটি টাকা। গত বছরের এ সময় ব্যাংকটির পরিচালন মুনাফা ছিল ৩০২ কোটি টাকা।

ন্যাশনাল ক্রেডিট অ্যান্ড কমার্স (এনসিসি) ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা হয়েছে ২৯৭ কোটি টাকা। গত বছরের জুনে ব্যাংকটির পরিচালন মুনাফা ছিল ২৩৭ কোটি টাকা।

মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক পরিচালন মুনাফা করেছে ২২৯ কোটি টাকা। গত বছরের জুনে এই ব্যাংকটির পরিচালন মুনাফা ছিল ১৮০ কোটি টাকা।

শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক পরিচালন মুনাফা করেছে ২১৬ কোটি টাকা। গত বছরের জুন শেষে ব্যাংকটির অর্ধবার্ষিক পরিচালন মুনাফা ছিল ১৭৩ কোটি টাকা।

যমুনা ব্যাংক পরিচালন মুনাফা করেছে ২৬৭ কোটি টাকা। গত বছরের জুনে এই ব্যাংকটির পরিচালন মুনাফা ছিল ১৮৬ কোটি টাকা।

ডাচ্-বাংলা ব্যাংক পরিচালন মুনাফা করেছে ২৯৫ কোটি টাকা। গত বছরের জুনে এই ব্যাংকটির পরিচালন মুনাফা ছিল ২৯৩ কোটি টাকা।

প্রিমিয়ার ব্যাংক পরিচালন মুনাফা করেছে ২২৫ কোটি টাকা। গত বছরের জুনে এই ব্যাংকটির পরিচালন মুনাফা ছিল ১৯৪ কোটি টাকা।

আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা কিছুটা কমেছে। জুন শেষে ব্যাংকটির পরিচালন মুনাফা দাঁড়িয়েছে ২৬০ কোটি টাকা। গত বছরের জুন শেষে ব্যাংকটির পরিচালন মুনাফা ছিল ৩২০ কোটি টাকা।

চতুর্থ প্রজন্মের ব্যাংকগুলোর মধ্যে সাউথ-বাংলা এগ্রিকালচার এন্ড কমার্স (এসবিএসি) ব্যাংকের ৬মাসে পরিচালন মুনাফা দাঁড়িয়েছে ৮৮ কোটি টাকা। গত বছরের একই সময় ব্যাংকটির পরিচালন মুনাফা ছিল ৬৩ কোটি টাকা।

এ প্রসঙ্গে এসবিএসি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী মো. গোলাম ফারুক বলেন, আমাদের ব্যাংকের বিতরণ হওয়া ঋণের মান ভালো হওয়ায় মুনাফা বেশি হয়েছে। আমরা কৃষি ও শিল্পকে সমানভাবে গুরুত্ব দিয়ে গ্রাহক নির্বাচন করেছি। তা ছাড়া আমাদের ঋণের ৩৮ শতাংশই বিতরণ হয়েছে এসএমই খাতে। সুতরাং কোনো একক গ্রাহক বা খাতকে বেশি ঋণ দিয়ে ঝুঁকিতে পড়িনি।

তিনি আরো বলেন, এসবিএসি ব্যাংক শুরু থেকেই কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সবধরনের নিয়মকানুন মেনে ব্যাংক পরিচালনা করে আসছে। সে জন্য ব্যাংকের সব সূচকে স্থিতিশীল প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে সক্ষম হয়েছি। মুনাফাকে প্রাধান্য দিয়ে নয় বরং গ্রাহক সেবাই আমাদের লক্ষ্য।

এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংক পরিচালন মুনাফা করেছে ৭৭ কোটি টাকা। গত বছরের জুনে এই ব্যাংকটির পরিচালন মুনাফা ছিল ৭২ কোটি টাকা। মেঘনা ব্যাংক পরিচালন মুনাফা করেছে ৩৫ কোটি টাকা। গত বছরের জুনে এই ব্যাংকটির পরিচালন মুনাফা ছিল ৫১ কোটি টাকা। মধুমতি ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা ৭৩ কোটি টাকা থেকে বেড়ে ৯০ কোটি টাকা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here